তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২nd মার্চ ২০১৬

বাংলাদেশ আইসিটি এক্সপো-২০১৬ উপলক্ষ্যে প্রেস কনফারেন্স


প্রকাশন তারিখ : 2016-03-02

 

 

 

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ এবং বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত বাংলাদেশ আইসিটি এক্সপো-২০১৬ উপলক্ষ্যে গত ০১ মার্চ (মঙ্গলবার) ২০১৬ খ্রিঃ তারিখ দুপুর ১২:৩০ মিনিটে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের মিডিয়া বাজারে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। উক্ত সংবাদ সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জনাব জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক, এমপি।

আমদানি নির্ভরতা কমিয়ে দেশে প্রযুক্তিপণ্য উৎপাদনে জোর দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক।

আগামী দুই-তিন বছরের মধ্যে কালিয়াকৈর হাইটেক পার্কে হার্ডওয়্যার যন্ত্রাংশ তৈরি করে কম্পিউটার, ট্যাবলেট পিসি, স্মার্টফোন ও অন্যান্য স্মার্ট ডিভাইস তৈরি করার কথা বলেন তিনি। এজন্য দেশের হার্ডওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারিংয়ে বিদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্ট করতে দ্বিতীয়বারের মতো বসছে বাংলাদেশ আইসিটি এক্সপো ২০১৬।

বৃহস্পতিবার থেকে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) তিন দিনব্যাপী আইসিটি এক্সপো চলবে শনিবার পর্যন্ত। এবারের এক্সপো উদ্বোধন করবেন পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

আইসিটি এক্সপো ২০১৬
সংবাদ সম্মেলনে প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশে আইসিটি এক্সপোকে একটি প্লাটফর্ম হিসেবে গড়ে তুলে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্ট করা হবে। এর জন্য দেশে হার্ডওয়্যার, ম্যানুফ্যাকচারিং খাতের সক্ষমতা, দক্ষতা ও সম্ভাবনাকে তুলে ধরতে দ্বিতীয়বারের মতো বাংলাদেশ আইসিটি এক্সপো ২০১৬ আয়োজন করা হচ্ছে। আর এবার উদ্দেশ্যই থাকবে হার্ডওয়্যার খাতে বিনিয়োগ আকৃষ্ট করা।

বিসিএস সভাপতি মাহফুজুল আরিফ বলেন, সফটওয়্যার ছাড়া যেমন হার্ডওয়্যার অচল, তেমনি হার্ডওয়্যার ছাড়া সফটওয়্যার। তাই দুটিকে একসঙ্গে কাজে লাগাতে হবে। আর হার্ডওয়্যার খাতের সীমাবদ্ধতা অতিক্রম করতে এই আয়োজন করা হচ্ছে।

‘মিট ডিজিটাল বাংলাদেশ’ স্লোগান নিয়ে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এক্সপোতে প্রদর্শনীর জন্য থাকছে ৫৯টি প্যাভিলিয়ন, ৭০টি স্টল। এছাড়াও স্থানীয় ম্যানুফ্যাকচারারস, প্রোডাক্ট শো-কেসিং, ইনোভেশন জোন, ডিজিটাল লাইফস্টাইল, বিজনেস টু বিজনেস ম্যাচমেকিংসহ নানা আয়োজন থাকছে।

থাকছে বিভিন্ন বিষয়ে প্রায় ১৪টি সেমিনার। যেখানে বেশ কয়েকটি দেশের ডেলিগেটরা প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন।
সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন আইসিটি সচিব শ্যাম সুন্দর সিকদার, প্লাটিনাম স্পন্সর ডেল বাংলাদেশ কান্ট্রি ম্যানেজার আতিকুর রহমান, মাইক্রোসফট বাংলাদেশ কান্ট্রি ম্যানেজার সোনিয়া বশির কবির ও মেলার আহ্বায়ক নজরুল ইসলাম মিলন।

এছাড়াও প্রযুক্তিবিদ মোস্তাফা জব্বার, বেসিস সভাপতি শামীম আহসানসহ আরও অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

আয়োজনের গোল্ড স্পন্সর এইচপি ইনকরপোরেশন, এইচপি এন্টারপ্রাইজ ও মাইক্রোল্যাব। সিলভার স্পন্সর কণা সফটওয়্যার ল্যাব, নিউম্যান, সিম্ফনি ও ওয়ালটন। আইটি স্পন্সর উই। গেমিং স্পন্সর আসুস ও গিগাবাইট। মিডিয়া পার্টনার এটিএন বাংলা, রেডিও টুডে ও সমকাল। ই-কমার্স পার্টনার বাগডুম।

মেলা প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

এছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখবেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সম্মানিত সচিব জনাব শ্যাম সুন্দর শিকদার, বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি  এ এইচ এম মাহফুজুল আরিফ ও মেলার আহবায়ক নজরুল ইসলাম মিলনসহ অনেকে। 

 


Share with :

Facebook Facebook